সুস্থতা আল্লাহ পাকের নেয়ামত

মেহেদী হাসান সাকিফ

জীবন নিয়ে কতই না স্বপ্ন, কতই না আশা।

আল্লাহতায়ালা অগণিত নেয়ামত দিয়ে আমাদের জীবনকে ধন্য করেছেন। এর মধ্যে অবসর ও সুস্থতা অন্যতম।

এই দুই নেয়ামতে একজন মুমিন বান্দা সহজেই দুই জীবনের সফলতা পেতে পারেন।

পবিত্র কোরআনে আল্লাহ বলেন, সময়ের শপথ, নিশ্চয় মানুষ ক্ষতির মাঝে রয়েছে, কিন্তু তারা নয়, যারা ইমান এনেছে এবং সৎকাজ করেছে আর পরস্পরকে উপদেশ দিয়েছে হকের এবং উপদেশ দিয়েছে ধৈর্যের [সূরা আসর, আয়াত ১-৩)।

একজন মুমিনের অন্যতম গুণ হচ্ছে বেহুদা কাজ থেকে দূরে থাকা। আল্লাহ বলেন, আর যারা (অর্থাৎ মুমিনরা) অনর্থক কথা-কর্ম থেকে বিমুখ (সূরা মুমিনুন-৩)।

ঘণ্টার পর ঘণ্টা বেহুদা গল্প চলছে, অর্থহীন প্রলাপে কাটে সময়। চলছে কারও কারও বিরুদ্ধে গিবত পরনিন্দার আসর। আবু বারজা আসলামি (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, বান্দার পা (কিয়ামতের দিন) নড়বে না যতক্ষণ না তাকে প্রশ্ন করা হবে তার বয়স সম্পর্কে, কী কাজে সে তা শেষ করেছে; তার ইলম সম্পর্কে প্রশ্ন করা হবে কী আমল করেছে সে; তার সম্পদ সম্পর্কে প্রশ্ন করা হবে কোথা থেকে সে তা অর্জন করেছে এবং কোথায় তা ব্যয় করেছে; তার শরীর সম্পর্কে প্রশ্ন করা হবে সে কিসে তা বিনাশ করেছে (সহিহ তিরমিজি, হাদিস নম্বর : ২৪১৭)।

আমরা কি একবার ভেবে দেখেছি এক জীবনের সময়ের হিসাব কীভাবে দেব?

সুস্থতা আল্লাহতায়ালার অনেক বড় নিয়ামত। হাদিস শরিফে ইরশাদ হয়েছে-

দুটি নিয়ামতের বিষয়ে অনেক মানুষ ধোঁকার মধ্যে রয়েছে- ১. সুস্থতা ২. অবসর (সহিহ বুখারি, হাদিস ৬৪২২)।

অনেকেই এ দুই নেয়ামত একসঙ্গে পায় না। কারও হাতে অবসর সময় নেই একদম। আবার কেউ কেউ অবসর পাচ্ছেন কিন্তু জীবন অসুস্থ।

এ দুটি নেয়ামত একসঙ্গে পেয়ে হেলায়-ফেলায় দিন কাটিয়ে দেয় অনেকেই।

দুই নেয়ামতের যথাযথ ব্যবহার করে দুনিয়ার জীবনকে যেমন সাজানো যায় সহজেই। হওয়া যায় জান্নাতের অধিকারী।

নেয়ামত পেয়ে অনেকেই প্রভুকে ভুলে যায়। বিদ্যুৎ ছাড়া যেমন কারখানা একমুহূর্ত চলে না তেমনি আল্লাহর দয়া ছাড়া আমাদের জীবন অর্থহীন। আমরা কেবল ছুটছি ধন-সম্পদ কামাই করতে।

যত পাই আরও চাই। কবরে যাওয়ার আগে কখনও আমাদের এই আকাক্সক্ষা শেষ হয় না। এ ব্যাপারে পবিত্র কোরআনে আল্লাহ বলেন, সম্পদের প্রতিযোগিতা তোমাদের ভুলিয়ে রেখেছে। যতক্ষণ না তোমরা কবরের সাক্ষাৎ পাবে।

কখনও নয়, জলদি তোমরা জানবে,

তারপর কখনও নয়, তোমরা তখন জানতে পারবে।

তোমরা যদি নিশ্চিত জানতে!

একদিন তোমরা তা নিশ্চিত দেখবে

(সূরা তাকাসুর, আয়াত ১-৭)।

জীবনের প্রতিটি মুহূর্তকে আল্লাহর সন্তুষ্টি পেতে চেষ্টা করি। তখন আমাদের জীবন হবে দামি

দুই জীবনে আসবে সফলতা।

লেখক : শিক্ষার্থী, ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগ, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়

Comments

comments