কেনিয়ার মার্কিন ঘাঁটিতে আল শাবাবের হামলা, একাংশ দখলের দাবি

কেনিয়ার উপকূলীয় লামু অঞ্চলে মার্কিন বাহিনীর ব্যবহৃত একটি সামরিক ঘাঁটিতে রোববার হামলা সোমালিয়ার আল-শাবাব বিদ্রোহীরা। তারা এই ঘাঁটিটির একাংশ দখল করতে সক্ষম হয়েছে বলে দাবি করেছে। এই ঘাঁটিটি মার্কিন সেনাবাহিনীর পাশাপাশি কেনিয়ান সেনাবাহিনীও ব্যবহার করে। যতদূর জানা গেছে, সেখানে এখনও দু’পক্ষের তুমুল লড়াই চলছে, হতাহতের খবর এখনও জানা যায়নি।

লামুর কমিশনার ইরুঙ্গু মাচারিয়া বলেন, সেখানে হামলা হয়েছিল। কিন্তু তারা পিছু হটেছে। ভোর হওয়ার আগেই ক্যাম্প শিমবা নামের ঘাঁটিতে ওই হামলার ঘটনা ঘটেছে। সেখানে নিরাপত্তা অভিযান চলমান রয়েছে। তবে এতে কোনো হতাহত হয়েছে কিনা তা বিস্তারিত জানাননি এই কর্মকর্তা।

এক বিবৃতিতে হামলার দায় স্বীকার করেছে আল-শাবাব। ব্যাপক সুরক্ষিত সামরিক ঘাঁটিতে সফলভাবে প্রবেশ করতে পেরেছেন বলে তারা দাবি করেন। আল-শাবাব জানায়, ফলপ্রসূভাবে ঘাঁটির নিয়ন্ত্রণ নিজের হাতে নিতে সক্ষম হয়েছেন তারা। হামলায় মার্কিন ও কেনিয়ান সেনা সদস্যরা হতাহত হয়েছেন বলে শাবাবের বিবৃতিতে জানানো হয়েছে। যদিও তদের দাবির পক্ষে তাৎক্ষণিকভাবে কোনো প্রমাণ প্রকাশ করেনি মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক আল কায়দার শাখা হিসেবে পরিচিত আল শাবাব।

জেরুজালেম কখনোই ইহুদিবাদে রূপান্তরিত হবে না– এমন প্রচারের অংশ হিসেবে এই হামলা বলে জানিয়েছে আল শাবাব।

গত বছরের জানুয়ারিতে নাইরোবির অভিজাত ডুস্টি হোটেল কমপ্লেক্সে হামলার সময় প্রথম তারা শ্লোগান ব্যবহার করে। ওই হামলায় ২১ জন নিহত হয়েছিল। ২০১১ সালে সোমালিয়ায় সেনা পাঠানোর প্রতিশোধ নিতে কেনিয়ায় বেশ কয়েকটি বড় ধরনের হামলা চালিয়েছে আল-শাবাব।

Comments

comments