কুবিতে সাংবাদিককে রড-লাঠি দিয়ে পেটালেন ছাত্রলীগ

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুবি) আবারও এক সাংবাদিককে পেটালেন শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। শনিবার (৪ জানুয়ারি) রাত ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত হলে হামলার শিকার হন শিক্ষার্থী ও দৈনিক বিজনেস বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি সজিব বণিক। পরে তাকে রাত ১টার দিকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ (কুমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আহত শিক্ষার্থী নৃবিজ্ঞান বিভাগের ২০১৫-১৬ বর্ষের।

জানা যায়, রাতে শহীদ ধীরেন্দনাথ দত্ত হলের ২০৪ নম্বর রুমের সিট নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সাংবাদিক সজীব বণিকের জিনিসপত্র ভাঙচুর ও মারধরের জন্য তেড়ে যান বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগ নেতা ও একাউন্টিং এন্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগের শিক্ষার্থী রাজু আহমেদ। এসময় ওই সাংবাদিক প্রতিবাদ করলে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সদস্য ও হল ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক মিরাজ খলিফা, ইমতিয়াজ শাহরিয়ার, ছাত্রলীগ নেতা রাজু আহমেদ, মুনতাসির হৃদয়, মুক্তার হোসাইনসহ বেশ কয়েকজন ছাত্রলীগ নেতাকর্মী রড-লাঠি দিয়ে সাংবাদিক সজীবকে পেটাতে থাকেন এবং এলোপাথাড়ি লাথি-ঘুষি মারতে থাকেন। এতে পায়ে এবং শরীরে জখম হয় ওই সাংবাদিকের।

আহত সজীব বণিক বলেন, ‘মারধর ও পেটানোর সময় আমাকে অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করেন হামলাকারী ও ছাত্রলীগ নেতারা।’ এর আগেও বিভিন্ন সময় শাখা ছাত্রলীগের মারধর ও হুমকির শিকার হয় বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সাংবাদিকরা।

এ ব্যাপারে জানতে যোগাযোগ করা হলেও অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতাদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

বিশ্ববিদ্যালয়টির সাংবাদিক সমিতির সভাপতি জাহিদুল আলম জানান, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ে হলের কক্ষেই ছাত্রলীগের কয়েকজন উচ্ছৃখল নেতাকর্মী সাংবাদিক সজীবকে পিটিয়েছে। একজন শিক্ষার্থী ও সাংবাদিককে পেটানোর ঘটনায় আমরা তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। পাশাপাশি অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য প্রশাসনের কাছে দাবি করছি।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে প্রক্টর ড. কাজী মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন বলেন, ‘বিষয়টি আবাসিক হলের। হল প্রাধ্যক্ষের সঙ্গে আমি কথা বলবো। অভিযোগ পেলে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

Comments

comments