ওয়েবসাইট ব্লক করে ক্ষতির মুখে বাংলাদেশ

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) একটি ওয়েবসাইট ব্লক করার পর বিশাল ক্ষতির মুখে পড়েছেন দেশের অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস ডেভেলপাররা। ওই নিউজ সাইটটি ব্লক করতে গিয়ে গুগলের একটা ক্রিটিক্যাল ইনফ্রাস্ট্রাকচার ব্লক করে দেয়া হয়েছে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

অ্যাপস ডেভলপার ইমরান মন্ডল বলেন, ‘বাংলাদেশে https://storage.googleapis.com/ লোড হয় না। npm install দিতে গিয়ে দেখলাম বারবার ফেইল হচ্ছে, gcp (google cloud platform)-তেও অনেক ফাইল লোড হচ্ছে না। পরে বুঝতে পারলাম বাংলাদেশে https://storage.googleapis.com/ বন্ধ। ঠিক যেভাবে reddit বন্ধ করেছিলো।’

‘taobao-এর মিরর আর cnpm দিয়ে কিছু কাজ চালিয়ে নিতে পারলেও, ক্লায়েন্টেদের অনেক রকম ফাইল google storage-এ রাখা লাগে। দিনে কয়েক ‘ বার google-এর বিভিন্ন সার্ভিস ব্যবহার করা লাগে। যেসমস্ত অ্যাপ গুগলের SDK (Software Dvelopment Kit) ইউজ করে সেসমস্ত অ্যাপ এখন কাজ করছে না,’ বলেন ইমরান।

সংশ্লিষ্ট খাতের ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বাংলাদেশে অ্যাপস ডেভলপিং সেক্টরে আনুমানিক ২০ থেকে ৩০ হাজার লোক কাজ করে। বছরে তাদের আয় আনুমানকি ১০০ মিলিয়ন ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় তা প্রায় ৮৫০ কোটি টাকা।

মোবাইল অ্যাপ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান এমসিসি লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী আশরাফ আবির বলেন, ‘বাংলাদেশের অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস ডেভলপার ঠিক কতজন রয়েছে তা সঠিকভাবে আমি বলতে পারছি না। তবে এই সেক্টরে কাজ করে আনুমানিক ২৫-৩০ হাজার হবে। বছরে তাদের আয় আনুমানকি ১০০ মিলিয়ন ডলার হবে। এর সঠিক তথ্য ব্যাংক সেক্টর ভালো দিতে পারবে।’

যে ওয়েবসাইটটি ব্লক করার পর এ ঘটনা ঘটেছে সেটির নাম নেত্র নিউজ। বিষয়টি নিয়ে সংবাদমাধ্যটির সস্পাদক তাসনিম খলিল ফেসবুক স্ট্যাস্টাসে বলেন, ‘বাংলাদেশে নেত্র.নিউজকে সেনসর করতে গিয়ে গুগলের একটা ক্রিটিক্যাল ইনফ্রাস্ট্রাকচার বন্ধ করে দিয়েছে …। এর প্রথম ধাক্কাটা যাচ্ছে ডেভলপারদের উপর, কিছুদিন পরে সমস্যা আরো বাড়বে।’

ওয়েবসাইটটি ব্লক করার বিষয়ে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘যদি এটা কোনো গুজব ছড়ায় তাহলে তা বন্ধ হতে পারে।’

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক অ্যাপস ডেভলপার করে বলেন, ‘নেত্র.নিউজ-কে যে সরকার ব্লক করবে এটা সম্ভবত উদ্যোক্তাদের জানা ছিল। এইজন্য তারা একটি বিকল্প ব্যবস্থা নিয়ে রেখেছিলেন। তারা একটি অল্টারনেটিভ পেজ গুগলের এমন একটা সার্ভারে হোস্ট করেছিলেন যেটা ব্লক করলে বাংলাদেশের অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস ডেভলপমেন্টের গুরুত্বপূর্ণ কিছু সার্ভার বন্ধ হয়ে যাবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘একটা ওয়েবসাইটকে ব্লক করার জন্য বাংলাদেশের হাজার হাজার ডেভলপারের পুরো অ্যাপস ডেভলপমেন্টের পথে এই ধরনের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করবে একটা ডিজিটাল বাংলাদেশ দাবি করা সরকার- সেটা বোধ হয় উনারা চিন্তা করতে পারেন নাই। একটা সদ্য জন্ম নেয়া ওয়েবসাইটকে ব্লক করার জন্য তারা পুরো দেশের অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস ডেভলপারদের কাজের সুযোগ বন্ধ করে দিচ্ছে।’

ব্লক করা ওয়েবসাইটটি বিকল্পভাবে গুগলের ফায়ারবেইজ স্টোরেজে হোস্ট করা হয়েছিল বলে আরেকজন ডেভেলপার জানান।

আরেকজন অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস ডেভলপার বলেন, ‘গুগলের স্টোরে যারা সিডিএন নিয়ে কাজ করে বাংলাদেশ থেকে তাদের এই সমস্যা হচ্ছে। বাংলাদেশ থেকে কোন একটি সাইট বন্ধ করতে গিয়ে পুরো সিস্টেমটাই একটি সমস্যার মুখে পড়েছে।’

এ বিষয়ে জানতে বিটিআরসি’র জ্যেষ্ঠ সহকারী পরিচালক (গণমাধ্যম) জাকির হোসেন খানকে বাংলা’র পক্ষ থেকে একাধিকবার ফোন করা হলেও তার ফোন রিসিভ হয়নি।

সূত্র: বাংলা

Comments

comments