আচরণবিধি লঙ্ঘনে ইসির কিছু করার ক্ষমতা নেই : ইশরাক

নির্বাচনে আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ নিয়ে এই নির্বাচন কমিশনের কোনো কিছু করার ক্ষমতা নেই বলে জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি (ডিএসসিসি) কর্পোরেশন নির্বাচনে বিএনপি’র মনোনীত মেয়র প্রার্থী প্রকৌশলী ইশরাক হোসেন।

বৃহস্পতিবার বিকালে রাজধানীর গোপীবাগে সাদেক হোসেন খোকা কমিউনিটি সেন্টারের ডিএসসিসি’র রিটার্নিং অফিসের অস্থায়ী কার্যালয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

ইশরাক বলেন, বাংলাদেশের বর্তমান পরিস্থিতি অনুযায়ী একটি নির্দলীয় সরকারের অধীনে ছাড়া কোনো নির্বাচন সুষ্ঠু হওয়ার সম্ভাবনা নেই। নির্বাচন আচরণবিধি লঙ্ঘনের যে অভিযোগ আমরা দিয়েছি সেই অভিযোগ নিয়ে এই নির্বাচন কমিশনের কোনো কিছু করার ক্ষমতা নেই। সরকারি দলের প্রার্থীরা যেভাবে আচরণবিধি লংঘন করে যাচ্ছেন সেভাবে করে যাবেন। এই বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ নেয়ার ক্ষমতা আসলে নির্বাচন কমিশনের বা রিটার্নিং অফিসারের নেই।

তিনি বলেন, ঢাকা দক্ষিণের বিভিন্ন স্থানে আওয়ামী লীগের প্রার্থির প্রচার-প্রচারণা, রঙ্গিন ব্যানার আমরা দেখেছি। রিটার্নিং অফিসার বরাবর আওয়ামী লীগের প্রার্থীর বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট ও তথ্য প্রমাণসহ অভিযোগ দিয়েছিলাম। অভিযোগের ব্যাপারে জানতে আমরা আজ এসেছি।

রিটার্নিং অফিসার আমাকে জানিয়েছে, অভিযোগের ব্যাপারে ম্যাজিস্ট্রেটকে একটি চিঠি দিয়েছে। এখন ম্যাজিস্ট্রের রিপোর্টের জন্য রিটার্নিং অফিসার অপেক্ষা করছে। তাছাড়া এখানে আসার আরেকটা উদ্দেশ্য হচ্ছে ইভিএম সম্বন্ধে জানা।

তিনি বলেন, আমাদের এই লড়াই চলবে। সারা জীবন চলবে। আমরা তো মানুষের অধিকারের লড়াই করছি। মানুষের ভোটের অধিকার ফিরিয়ে দেবার লড়াই করছি। গণতন্ত্রের পক্ষে লড়াই করছি। এই লড়াইয়ের কোনো শেষ নেই। আমরা শেষ মুহুর্ত পর্যন্ত ভোটের মাঠে থাকবো।

এই মেয়র প্রার্থী বলেন, একটি ভুয়া নির্বাচনের ফলাফল দিয়ে জয়-পরাজয় নির্ভর করে না। আমাদের জয় আমাদের হয়ে গিয়েছে। কারণ দেশের ৮০ ভাগ মানুষ এই সরকারের বিপক্ষে। এই সরকারের সকল প্রার্থীর বিরুদ্ধে চলে গিয়েছে। এটি তারা বুঝতে পেরেছে। এজন্য গত জাতীয় নির্বাচনে তারা তামাশার নির্বাচন অনুষ্ঠিত করেছিল। একবার যখন তারা এটা করে ফেলেছে এখন তারা পন্থাটা পরিবর্তন করছে।

ইভিএম সম্পর্কে বিএনপির তরুণ নেতা বলেন, যদিও ইভিএম সম্বন্ধে আমার সম্পূর্ণ ধারণা রয়েছে। ইভিএম সম্বন্ধে ইলেকশন কমিশনের যে অংশটা রয়েছে সেটা আমাদের বুঝিয়েছে। কিন্তু এখানে কি সফটওয়্যার দ্বারা ইভিএম চালিত হচ্ছে এবং ভিতরে কি প্রোগ্রাম রয়েছে সেই ব্যাপারে তাদের কোনো ধারণা নেই। ইভিএম নিয়ে আমাদের আস্থা করার কোনো প্রশ্নই আসে না। ইভিএমের ভিতরে যদি প্রোগ্রাম সেট করা থাকে তাহলে সম্পূর্ণ ফলাফল পরিবর্তন করা যায়। এ ফলাফল পাল্টে যাবে নিশ্চুপে, কারো কোনো কিছু বোঝার ক্ষমতা থাকবে না।

Comments

comments