জিনের বাদশার আস্তানায় যুবলীগ নেতা, ইয়াবাসহ আটক ৮

জিনের বাদশার আস্তানায় ইয়াবাসহ এক যুবলীগ নেতাকে আটক করেছে পুলিশ। পাশাপাশি একই স্থান থেকে আরও ৮ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়। এসময় তাদের কাছে থেকে ৩১৩ পিস ইয়াবা, ১ কেজি ২৫ গ্রাম গাঁজা ও নগদ ১০ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়।

বুধবার দিবাগত রাত পৌনে ১টার দিকে ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার টবগী ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের মুলাইপত্তন গ্রামের জিনের বাদশা মোকাম্মেল ভূঁইয়ার পরিত্যক্ত ঘর থেকে তাদের আটক করা হয়। বৃহস্পতিবার দুপুরে আটককৃতদের আদালতে হাজির করা হয়। পরে আদালতের নির্দেশে তাদের জেলহাজতে পাঠানো হয়।

আটক যুবলীগ নেতা ইসমাইল খান ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক। আটকদের মধ্যে মাকসুদুর রহমান ওরফে মকসুদ উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাদ্দাম হোসেন প্রচার সম্পাদক।

পুলিশ জানায়, বুধবার দিবাগত রাত পৌনে ১টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (লালমোহন সার্কেল) মো. রাসেলুর রহমানের নেতৃত্বে বোরহানউদ্দিন থানার ওসি মু. এনামুল হক, এসআই মোহাইমিনুল ইসলাম, এসআই মো. হেমায়েত উদ্দিনসহ পুলিশের একটি টিম বোরহানউদ্দিন উপজেলার টবগী ইউনিয়নের চকডোষ গ্রামে মাদকবিরোধী অভিযান চালায়। ওই সময় মোকাম্মেল ভূঁইয়ার ঘর থেকে ৯ মাদক পাচারকারীকে আটক করা হয়। পরে তাদের শরীর তল্লাশি করে ৩শ’ ১৩ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট ও ১ কেজি ২৫ গ্রাম গাঁজা উদ্ধার করা হয়।

অভিযোগ রয়েছে, এ আস্তানায় বসেই জিনের বাদশা সেজে দেশের বিভিন্ন এলাকার মানুষের মোবাইল ফোনে কল দিয়ে প্রাথমিক তথ্য নেয়া হয়। পরে ইমো বা ভিডিও কলের মাধ্যমে সাধারণ মানুষকে প্রতারণার ফাঁদে ফেলে রোগমুক্তি, আদালতের মামলার রায় পক্ষে আনা, সংসারে শান্তি আনা, ব্যবসায় লাভবান হওয়া, প্রেমিক-প্রেমিকার মন পাওয়া, নিঃসন্তান নারীর সন্তানলাভ করাসহ নানা বিষয়ে প্রলুব্ধ করে টাকা হাতিয়ে নেয়া হয়।

বোরহানউদ্দিন থানার ওসি মু. এনামুল হক আটকের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আটককৃতদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা হয়েছে। তাদের কোর্টের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। জিরো টলারেন্সে মাদকবিরোধী অভিযান মাদকমুক্ত না হওয়া পর্যন্ত চলবে বলেও তিনি জানান।

আটক অন্যরা হলেন- কুঞ্জেরহাটের আবু তাহের ভূঁইয়ার ছেলে মোকাম্মেল ভূঁইয়া, তজুমদ্দিন উপজেলার তালুক গ্রামের আব্দুর রব তালুকদারের ছেলে মো. সবুজ তালুকদার, একই উপজেলার কেয়ামুল্লা গ্রামের সেরাজল হকের ছেলে মো. শাহাবুদ্দিন, চরফ্যাশনের শশিভূষণ থানার চরমঙ্গল গ্রামের ছিদ্দিক বেপারীর ছেলে মো. কবির বেপারী, একই উপজেলার রসুলপুর ইউনিয়নের ৪ নাম্বার ওয়ার্ডের মাইনুদ্দিনের ছেলে মোশারেফ হোসেন মঞ্জু, বোরহানউদ্দিন পৌরসভার ৫ নাম্বার ওয়ার্ডের ইউনুছ মিয়ার ছেলে মো. মামুন।

Comments

comments