আ.লীগের মিছিল থেকে ইশরাকের বাসার সামনে অতর্কিত হামলা

ইশরাক হোসেন বাসার পাশে অতর্কিত ভাবে হামলা চালিয়েছে আওয়ামী লীগ ও যুবলীগের নেতাকর্মীরা। আজ সন্ধ্যায় আওয়মী লীগের মিছিল থেকে এ হামলা চালানো হয় বলে জানা গেছে।

জানা যায়, ৮নং ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগের কাউন্সিলরের পক্ষে মিছিল করতে করতে গোপিবাগ বিএনপি’র মেয়র প্রার্থী ইসরাক হোসেন এর বাসায় সামনে এসে অতর্কিতে হামলা ও বাসার সামনে পার্কিং করা বেশ কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুর করে আওয়ামী ও যুবলীগের নেতাকর্মীরা। এ সময় তারা ইসরাক হোসেন কে হুমকি দেয়। এই হামলার নেতৃত্ব দেয় যুবলীগ নেতা নেতা তানভীর।

এর আগে দুপুরে কমলাপুর রেল স্টেশন থেকে গণসংযোগ শুরু করেন ইশরাক। এ সময় রাস্তার দুই পাশ থেকে লোকজনকে হাতে নেড়ে শুভেচ্ছা জানান ঢাকার সাবেক মেয়র সদ্যপ্রয়াত সাদেক হোসেন খোকার ছেলে ইশরাক।

এবারই প্রথম কোনো নির্বাচনে অংশ নিয়েছে ইশরাক। সাংবাদিকদের বলেন, “আমরা আন্দোলনের অংশ হিসেবেই এই নির্বাচনে অংশ নিচ্ছি। নির্বাচন নিয়ে আমরা শঙ্কায় আছি। তবে আমরা বিশ্বাস করি, যেভাবে মানুষজন আমাদেরকে হাত নেড়ে শুভেচ্ছা জানাচ্ছে, তাতে সুষ্ঠু ভোট হলে ধানের শীষের বিজয় কেউ রুখতে পারবে না।”

নির্বাচন নিয়ে আশা প্রকাশ করে বিএনপির মেয়ার প্রার্থী বলেন, “এই নির্বাচনের মাধ্যমে নগরবাসী দুর্নীতি ও দূষণের বিরুদ্ধে রায় দেবে, এই নির্বাচনের মাধ্যমে নগরবাসী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবির পক্ষে রায় দেবে, গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার পক্ষে রায় দেবে।”

খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবি সম্বলিত ধানের শীষে ভোট প্রার্থনার প্রচারপত্র মানুষের হাতে তুলে দিয়ে দোয়া চান ইশরাক।

এদিকে সন্ধ্যা ছয়টায় বাংলামোটরে তাবিথ আউয়ালের অফিসের নিচে হামলা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক এইচ এম আবু জাফরসহ চারজন আহত হয়।

জানা যায়, নিয়মিত কাজ শেষ করে অফিস থেকে বের হয়েছিলেন ছাত্রদলের নেতারা। অফিসের নিচে নামতেই প্রায় ২০ থেকে ২৫ জন রড ও হকিস্টিক দিয়ে নেতাকর্মীদের উপর হামলা চালায়।

আহদের মধ্যে অন্যরা হলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্জন হল শাখা ছাত্রদলেল যুগ্ম আহবায়ক মাসুম, এস এম হলের যুগ্ম আহবায়ক মাসুম বিল্লাহ, মহসিন হলের যুগ্ম আহবায়ক হাসান। আহতদের চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

Comments

comments