যুবকদের উদ্দেশ্যে আযহারীর আবেগঘন স্ট্যাটাস

ড. মিজানুর রহমান আযহারী দেশের জনপ্রিয় একজন ইসলামী বক্তা। সাম্প্রতিক সময়ে তার সুমধুর কণ্ঠে ওয়াজ শুনতে লাখো মানুষের সমাগম ঘটে। ইউটিউব-ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তরুণ সমাজ আযহারীতে যেন বুঁদ হয়ে আছেন। নানা প্রতিকুলতার মধ্যেও দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে ছুটে যাচ্ছেন ওয়াজ-মাহফিল করার জন্য।

শুক্রবার রাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের নিজের ভেরিফায়েড পেইজে তরুণদের উদ্দেশ্যে আবেগঘন স্ট্যাটাস দিয়েছেন ড. মিজানুর রহমান আযহারী।

তিনি প্রশ্ন তুলে লিখেছেন, এ দেশের যুবকদের গায়ে আল কোরআনের বাতাস লেগেছে। ওদের হৃদয়ে লেগেছে কালামে পাকের হিমেল ছোঁয়া। তাই তো পঙ্গপালের মতো ওরা ছুটে আসছে আল কোরআনের মাহফিলগুলোতে। আমরা কি পারব ওদেরকে ধরে রাখতে? বেঁধে রাখতে হেরার আলোর সুতো দিয়ে? নাকি আমাদের কাঁদা ছোড়াছুড়ি আর নোংরামিতে ওরা মুখ ফিরিয়ে নেবে। আর গা ভাসাবে অপসংস্কৃতির গড্ডালিকা প্রবাহে?

স্ট্যাটাসটি সংবাদের পাঠকদের জন্য হুবহু তুলে ধরা হলো–

‘এ দেশের যুবকদের গায়ে আল কোরআনের বাতাস লেগেছে। ওদের হৃদয়ে লেগেছে কালামে পাকের হিমেল ছোঁয়া। তাই তো পঙ্গপালের মতো ওরা ছুটে আসছে আল কোরআনের মাহফিলগুলোতে। আমরা কি পারব ওদেরকে ধরে রাখতে? বেঁধে রাখতে হেরার আলোর সুতো দিয়ে? নাকি আমাদের কাঁদা ছোড়াছুড়ি আর নোংরামিতে ওরা মুখ ফিরিয়ে নেবে। আর গা ভাসাবে অপসংস্কৃতির গড্ডালিকা প্রবাহে?’

মহান আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করে আযহারী লিখেন– ‘হে আরশের মালিক, আমাদের দুর্বলতা ও ব্যর্থতার কারণে সম্ভাবনার এ দ্বার যেন রুদ্ধ না হয়। আমরা যেন হেরে না যাই। শেষ পর্যন্ত যেন লড়ে যেতে পারি তোমার কোরআনের জন্য।’

একইদিন ফরিদপুরের শ্যামসুন্দরপুর জামিয়া আরাবিয়া ফরিদিয়া কওমি মাদ্রাসা ও এতিমখানায় ইসলামী মহাসম্মেলনে বক্তব্য রাখেন তিনি। সেখানেও তীব্র শীত উপেক্ষা করে লাখো মানুষ উপস্থিত হয় বক্তব্য শোনার জন্য।

এর আগে ১৫ জানুয়ারী বুধবার ফেনীর কাশিমপুরে তাফসির মাহফিলে বক্তব্য দেন ড. মিজানুর রহমান আযহারী। সেখানে প্রায় দুই লক্ষাধিক মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

Comments

comments