সারাদেশ

থানা কমিটি বাতিলের দাবিতে ছাত্রলীগের অবরোধ, ভোগান্তিতে যাত্রীরা

2020/02/Untitled-1-9.png

চট্টগ্রামে দুটি থানা ছাত্রলীগের কমিটি বাতিলের দাবিতে সড়ক অবরোধ করেছে ছাত্রলীগের একাংশ।

আজ শুক্রবার বিকেলে চট্টগ্রাম শহরের চৌমুহনী ও দেওয়ানহাট মোড়ে টায়ার জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধ করে ক্ষুব্ধ নেতা-কর্মীরা। এতে আধা ঘণ্টার জন্য সড়কে যানচলাচল বন্ধ হয়ে গেলে ভোগান্তিতে পড়েন সাধারণ যাত্রীরা।

চট্টগ্রামের চান্দগাঁও থানায় নুরুন নবী শাহেদকে সভাপতি ও মো. শহীদুল আলমকে সাধারণ সম্পাদক এবং ডবলমুরিং থানায় ফরহাদ সায়েমকে সভাপতি ও রাকিব হায়দারকে সাধারণ সম্পাদক করে গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে কমিটি ঘোষণা করা হয়। নতুন কমিটির মধ্যে ছাত্রদল নেতার ভাইও আছেন বলে অভিযোগ তুলেছেন ক্ষুব্ধ নেতা-কর্মীরা। এ ছাড়া নগর ছাত্রলীগের মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি বাতিলের দাবিও জানান ক্ষুব্ধ তাঁরা।

বৃহস্পতিবার রাতে দুটি থানার কমিটি ঘোষণা হওয়ার পর ছাত্রলীগের একাংশের নেতা—কর্মীরা ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন। থানা কমিটি বাতিলের দাবিতে আজ বিকেলে দেওয়ানহাট মোড়ে জমায়েতের ডাক দেওয়া হয়। দেওয়ানহাট থেকে মিছিল নিয়ে চৌমুহনী মোড়ে সমাবেশ করেন তাঁরা। সেখানে প্রতিবাদ সভায় ক্ষুব্ধ নেতা-কর্মীরা ডবলমুরিং ও চান্দগাঁও থানা ছাত্রলীগের কমিটি বাতিল করে নতুন করে কমিটি গঠনের দাবি জানায়। একই সঙ্গে নগর ছাত্রলীগের মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি বাতিল এবং নতুন করে সম্মেলন ডেকে কমিটি গঠনের দাবি জানান। দাবি না মানা পর্যন্ত আন্দোলন অব্যাহত থাকবে বলে সমাবেশ থেকে ঘোষণা দেওয়া হয়।

সমাবেশের পর ক্ষুব্ধ নেতা-কর্মীরা শেখ মুজিব রোডে (দেওয়ানহাট থেকে আগ্রাবাদ পর্যন্ত সড়ক) একাধিক টায়ার জ্বালিয়ে যান চলাচলে বিঘ্ন সৃষ্টি করেন। সাপ্তাহিক ছুটির দিন থাকায় যান চলাচল স্বাভাবিকের চেয়ে কম ছিল। এরপরও সড়কের দুই পাশে যানজটের সৃষ্টি হয়।

বিক্ষোভ কর্মসূচিতে সভাপতিত্ব করেন এম ই এস কলেজ শাখা ছাত্রলীগের কর্মী রেজাউল করিম। এতে নগর ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বিরোধী নেতা-কর্মীরা অংশ নেন। গত আট মাস ধরে ছাত্রলীগের একটি অংশ নগর কমিটি বাতিলের দাবি জানিয়ে আসছে।

ক্ষুব্ধ অংশের নেতা এবং নগর কমিটির উপ-অর্থ বিষয়ক সম্পাদক ইমরান আলী বলেন, ‘আমাদের নগর কমিটি মেয়াদোত্তীর্ণ। নতুন নেতাদের হাতে নেতৃত্ব ফিরিয়ে দেওয়া উচিত। এ জন্য আট মাস ধরে আন্দোলন চলছে। কিন্তু পদ আঁকড়ে রেখে আমাদের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক দুটি থানায় বিতর্কিত কমিটি ঘোষণা করেছেন।’

ইমরান আলী আরও বলেন, চান্দগাঁও ও ডবলমুরিং থানা কমিটিতে ছাত্রদল নেতার ভাই ছাড়াও অছাত্র এবং পেশাদার অপরাধীরা জায়গা পেয়েছে। ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন করা হয়নি। এ জন্য ছাত্রলীগের ত্যাগী নেতা-কর্মীরা মাঠে নেমেছে।

এ বিষয়ে জানতে নগর কমিটির সভাপতি ইমরান আহমেদের মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাঁকে পাওয়া যায়নি।

সূত্র: প্রথম আলো

মন্তব্য