শেখ মুজিবের ছবিকে সম্মান দেখিয়েও চাকরি হারাচ্ছেন ৪ কর্মকর্তা

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবিকে অযত্নে রাখার ঘটনায় পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদ নিয়ে নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদপ্তরে তুলকালাম কাণ্ড শুরু হয়েছে। ছবিটি যারা অযত্নে রেখেছেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিয়ে উলটো যারা এটিকে সম্মান দেখিয়েছেন তাদের চাকরিচ্যুতের হুমকিসহ নানা হয়রানি করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদপ্তরের এক উপপরিচালকের তথ্যে উঠে এসেছে সেই ছবি কীভাবে অযত্নে রুমের বাইরে রাখা হয়েছিল। নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদপ্তরের উপপরিচালক (শিক্ষা) শাহানারা বেগম বলেন, বর্তমান ডিজি যোগদানের পরে তার রুম পরিষ্কার করার কারণে বঙ্গবন্ধুর ছবিটি অযত্নে বারান্দায় ফেলে রাখা হয়। পরে সে অবস্থায় দেখে ছবিটি আমার রুমে নিয়ে আসি।

তিনি বলেন, আমার রুমে আরেক উপপরিচালক (শৃঙ্খলা) সালেহা খাতুন বসেন। তিনি মাঝে মধ্যে এটিকে উলটিয়ে রেখে দিতেন। এর পরেই এটি আবার ডিজির রুমেই নিয়ে যাওয়া হয়। অথচ বঙ্গবন্ধুর ছবিকে সম্মান দেখাতে গিয়ে আমিসহ আরো তিন জন এখন বিপদে পড়েছি। ছবিটি ডিজির রুমে অযত্নে থাকলেও এ নিয়ে উলটো যারা এর সঙ্গে জড়িত নয় তাদেরকে শোকজ করা হয়েছে।

এই ঘটনায় নার্সিং অধিদপ্তর থেকে যে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছিল তারাও মূল ঘটনাকে পাশ কাটিয়ে পত্রিকায় রিপোর্ট প্রকাশের জন্য কয়েক জন কর্মকর্তাকে দায়ী করেন। যদিও ঐ রিপোর্টের সঙ্গে কর্মকর্তাদের কোনো সম্পর্ক নেই। তদন্ত কমিটির রিপোর্টে কোথাও এই কর্মকর্তাদের কী অপরাধ সেটা উল্লেখ করা হয়নি। পত্রিকায় রিপোর্ট প্রকাশের জন্য তারা কেন দায়ী তাও বলা হয়নি। তারপরও তাদের শোকজ করা হয়েছে। অথচ রিপোর্টটি ছিল দুদকের অভিযানের বিষয় নিয়ে। সেখানে কর্মকর্তাদের সঙ্গে এর কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই।

Comments

comments