আব্দুস সোবহানের মৃত্যুতে ছাত্রশিবিরের শোক প্রকাশ

বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ, বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমীর, সাবেক এমপি, প্রখ্যাত আলেম ও দেশের ইসলামী আন্দোলনের অন্যতম শীর্ষ নেতা মাওলানা আব্দুস সোবহানের ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির।

এক যৌথ শোক বার্তায় ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি মোঃ সিরাজুল ইসলাম ও সেক্রেটারি জেনারেল সালাহউদ্দিন আইউবী বলেন, দেশের ইসলামপ্রিয় কোটি জনতার প্রাণপ্রিয় নেতা মাওলানা আব্দুস সোবহান আজ দুপুর ১টায় ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাইহি রাজিঊন)। সরকারের সাজানো মামলায় আটক থাকা অবস্থায় জীবনের শেষ প্রান্তে তিনি পরিবারের সান্নিধ্য ও উন্নত চিকিৎসা বঞ্চিত অবস্থায় ইন্তেকাল করেছেন। তাঁর এই বেদনাদায়ক মৃত্যুতে ইসলামপ্রিয় সাধারণ জনতা গভীরভাবে শোকাহত।

নেতৃবৃন্দ বলেন, মাওলানা আব্দুস সোবহান সুস্থ রাজনীতির এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। তিনি ছিলেন গণমানুষের প্রিয় নেতা। যার প্রমাণ তিনি ৫ বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। শুধু পাবনা নন তিনি সারাদেশের ও ইসলামপ্রিয় জনগণের প্রিয় মুখ ছিলেন।

তাঁকে ইসলামী আন্দোলনের অগ্রসেনানী উল্লেখ করে নেতৃবৃন্দ বলেন, শত বাঁধা, নির্যাতন, অপবাদ সত্ত্বেও তিনি ইসলামের মহান আদর্শ থেকে চুল পরিমাণ বিচ্যুত হননি। এদেশের মাটিতে ইসলামী সমাজব্যবস্থা কায়েম করার জন্য আমৃত্যু সংগ্রাম করে গেছেন তিনি। জুলুম সহ্য করেছেন কিন্তু অন্যায়ের কাছে মাথা নত করেননি।

নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, তিনি রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার হয়েছেন। তাঁর জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে বিচারের নামে অবিচারের মাধ্যমে একজন জনপ্রিয় বর্ষীয়ান নেতাকে কারাপ্রকোষ্টে বন্দি করে রাখা হয়েছিল। আমরা স্পষ্ট করে বলতে চাই, জামায়াতের শীর্ষ নেতৃবৃন্দকে হত্যা করে ও নির্যাতন করে, কারারুদ্ধ করে সরকার ইসলামী আন্দোলনের কোন ক্ষতি করতে পারেনি। বরং আল্লাহর রহমতে আমাদের সম্মানিত নেতৃবৃন্দ লাখো কোটি তরুণ ও ইসলামী আন্দোলনের কর্মীদের জন্য প্রেরণার বাতিঘর হিসেবে পরিগণিত হয়েছেন। অবৈধ সরকার যতই অপবাদ দিক না কেন, এই মহান নেতাকে তাঁর দেশ ও ইসলাম রক্ষার আপোষহীন ভূমিকার জন্য বাংলাদেশের মানুষ শ্রদ্ধার সাথেই স্মরণ করবে, ইনশাআল্লাহ।

নেতৃবৃন্দ মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা করেন ও শোক সন্তপ্ত পরিবার যেন ধৈর্যধারণ করতে পারেন, সেজন্য মহান আল্লাহর কাছে দোয়া করেন।

Comments

comments