ব্রেকিং

দিল্লির মুসলমানদের উপর হামলার প্রতিবাদ জানালো অভিনেতা অভিনেত্রীরা

2020/02/Untitled-1-97.png

দিল্লির মুসলমানদের উপর হামলার ভয়ানক দৃশ্য ইতিমধ্যে পৌঁছে গেছে দুনিয়ার নানা কোণে। এই তো কিছুদিন আগে জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়ার ছাত্র আমির আজিজের ভাইরাল কবিতা ‘সব ইয়াদ রাখা জায়েগা’ ধ্বনিত হলো বিখ্যাত ব্রিটিশ রক ব্যান্ড পিংক ফ্লয়েডের অন্যতম স্রষ্টা রজার ওয়াটার্সের কণ্ঠে। এবার ভারতের চলচ্চিত্র তারকারা উত্তপ্ত পরিস্থিতে জমাট নৈঃশব্দ্য ভেঙে সরব হয়েছেন। বাদ যাননি সাংসদ শিল্পীরাও। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শিল্পীরা তাঁদের অবস্থান স্পষ্ট করছেন শব্দমালায়।

টুইটার, ফেসবুকে সহিংসতা ছড়ানো বন্ধের বার্তা দেওয়ার পাশাপাশি, ঘটনার তীব্র নিন্দা করেন অভিনেত্রী-সাংসদ নুসরাত জাহান, মিমি চক্রবর্তী, দেব, অনির্বাণ ভট্টাচার্য, সৃজিত মুখোপাধ্যায়, পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়ের মতো দুই বাংলার পরিচিত সব মুখ।

‘বাইশে শ্রাবণ’, ‘হেমলক সোসাইটি’, ‘প্রলয়’খ্যাত পরমব্রত চট্টোপাধ্যায় (৩৯) লিখেছেন ‘না, যা ঘটছে তা এখন আর কোনো আকস্মিক ঘটনা নয়। বিষয়টা তো অনেক আগেই শুরু হয়ে গিয়েছিল। এখন কেবল সামনে আসল। ভিডিওটিতে যে দৃশ্য দেখা গিয়েছে (দুঃখজনকভাবে) তা আমাদেরই করুণ, অসহায়ত্বের প্রতিচ্ছবি মাত্র।’ যা ঘটছে, তাতে অর্ধশতক পরে ইতিহাস আমাদেরই কাঠগড়ায় দাঁড় করাবে বলে মনে করছেন অভিনেতা পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়।

‘খিলাড়ি’, ‘জুলফিকার’খ্যাত অভিনয়শিল্পী নুসরাত জাহান (৩০) ভারতে লোকসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গের উত্তর চব্বিশ পরগনার বসিরহাট থেকে তৃণমূল দলের প্রতিনিধি হিসেবে সাংসদ নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি লিখেছেন ‘দুঃখিত, হৃদয়বিদারক, শোকস্তব্ধ! আমার দেশ জ্বলছে। সবার আগে মনে রাখতে হবে, আমরা প্রত্যেকেই মানুষ। দয়া করে ভুল খবর, বিভ্রান্তি ও হিংসা ছড়াবেন না।’

একই নির্বাচনে যাদবপুর থেকে নির্বাচিত সাংসদ ও অভিনয়শিল্পী মিমি চক্রবর্তী লেখেন, ‘আজ ভালো হয়েছে কবিগুরু তুমি বেঁচে নেই। আজ ভালো হয়েছে কবি নজরুল তুমি বেঁচে নেই। কারণ মোরা একই বৃন্তে দুটি কুসুম হিন্দু–মুসলমান আর নই, মোরা রাম আর রহিম ভাই ভাই আর নই। যেটা আমরা এখন…সেটা আর যা–ই হোক মানুষ আর নই...।’

জনপ্রিয় অভিনেতা ও সাংসদ দেব লিখেছেন, ‘আমি দেখতে পাচ্ছি না দিল্লি জ্বলছে…আমি দেখছি মানবতা জ্বলছে। এগুলো যত দ্রুত সম্ভব শেষ হুয়া জরুরু। নইলে দেশ হিসেবে, মানুষ হিসেবে আমরা ব্যর্থ হয়ে পড়ব।’

টুইট বার্তায় পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায় ‘জন গণ মন’-এর একটি স্তবক উদ্ধৃত করে মানুষকে ঐক্যবদ্ধ থাকার পরামর্শ দিয়েছেন। অনির্বাণ ভট্টাচার্যর লেখায় প্রতিবাদ জোরালো। তিনি লিখেছেন, ‘দিল্লি তে কী হচ্ছে, বিজেপি আইটি সেল একটু বলবেন? আপনাদের কাছেই শুনব, কারণ দেশ তো আপনারাই গড়ছেন। টুকরো টুকরো খবর শুনে কী করব বলুন, আপনারাই বেশ করে বুঝিয়ে দিন তো, যাতে আমার এখনো না হওয়া কাল্পনিক সন্তানেরও মাথায় গেঁথে যায়। নিন, বোঝান...আচ্ছা, ট্রাম্প এখন কোথায়?’

স্থানীয় এক গণমাধ্যমের সাংবাদিক এ বিষয়ে তাঁকে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, ‘আমরা যাদের ভোট দিয়ে নির্বাচিত করি, আসল কাজটা তো তাঁদের করার কথা। আমরা টুইট ছাড়া আর কীই–বা করতে পারি! দিল্লির ঘটনা দেশের সাম্প্রতিক রাজনৈতিক ইতিহাসের অন্যতম কালো অধ্যায়।’

অন্যদিকে সংগীতশিল্পী অনুপম রায় প্রতিবাদে শামিল হলেন গান দিয়ে। প্রকাশ করেছেন ‘পরিচয়’ শিরোনামের একটি গান। গানটির কথা এমন, ‘যদিও ওরা তোমায় চিনতে চেয়ে / প্রশ্ন করে বলো তুমি কে/ হাসিমুখে জবাব দিয়ো ভাই / সবার ওপরে মানুষ সত্য, তাহার উপরে নাই।’

এ প্রসঙ্গে অনুপম রায় কলকাতা থেকে প্রচারিত একটি গণমাধ্যমে বলেছেন, ‘১২ বছর আগেই গানটি লিখেছিলাম, তখন আমি এই জগতে আসিনি। তবে বর্তমান সামাজিক অবস্থায় আবার এই গানকে ফেরাতে বাধ্য করেছে। চণ্ডীদাস থেকে লালন, রবীন্দ্রনাথ সকলেই যুগে যুগে গানের মাধ্যমেই মানবতার কথা বলেছেন।’ এ ছাড়া দিল্লির ঘটনায় টুইট করেছেন অভিনেতা আবির চট্টোপাধ্যায়, অঙ্কুশ হাজরা, পরিচালক রাজ চক্রবর্তী, অভিনেত্রী শুভশ্রীসহ আরও অনেকে।

মন্তব্য