করোনা মোকাবিলায় ‘খুবই কার্যকর’ জাপানি ইনফ্লুয়েঞ্জার ওষুধ: চীন

করোনাভাইরাস মোকাবিলায় জাপানের একটি ওষুধ দারুণভাবে কার্যকরী বলে ধারণা করছে চীনা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা। কয়েক বছর আগে জাপানে সংক্রমিত হওয়া নতুন একটি ইনফ্লুয়েঞ্জার ওষুধ সেটি।

গার্ডিয়ান জানায়, জাপানের ওষুধটি চীনে কয়েকশ করোনা রোগীর শরীরে প্রায়োগিক পরীক্ষা চালিয়ে আশাবাদী গবেষকেরা।

চীনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা ঝাং চিনমিন জানান, উহান এবং শেনঝেন শহরের করোনা আক্রান্ত ৩৪০ ব্যক্তির দেহে জাপানের ওষুধটি পরীক্ষা চালানো হয়েছে। এতে তারা উৎসাহব্যঞ্জক ফলাফল পেয়েছেন। তিনি বলেন, ‘ওষুধটিতে উচ্চমানের সুরক্ষা আছে সেই সঙ্গে চিকিৎসার জন্য স্পষ্টই কার্যকর।’

রোগীদের মধ্যে চারদিন মেয়াদে ওষুধটি প্রয়োগ করা হয়। এতে তারা করোনামুক্ত হয়ে উঠছেন। এক্স-রে রিপোর্টে দেখা যাচ্ছে, ফ্যাভিপিরাভির নামে ওষুধটি প্রয়োগের পর আক্রান্তদের ফুসফুসের অবস্থা ৯১ শতাংশ উন্নতি করেছে। ওই ওষুধ না নেয়া রোগীদের ক্ষেত্রে যেটি ৬২ শতাংশ।

ফুজিফিল্ম টয়ামা কেমিক্যাল নামে এক জাপানি কোম্পানি ২০১৪ সালে ওষুধটি প্রস্তুত করে। এটি অ্যাভিগান নামেও পরিচিত। তবে চীনের দাবি নিয়ে কোম্পানিটি কোনো ধরনের মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।

এদিকে করোনাভাইরাসে বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৮ হাজার ৬ জনে দাঁড়িয়েছে। আক্রান্ত সংখ্যা দুই লাখ এক হাজার ৪৩৬ জন। তবে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৮২ হাজারের অধিক।

মৃত ও আক্রান্তদের বেশিরভাগ চীনের বাসিন্দা হলেও এই মুহূর্তে সেখানে সংক্রমণ কমে এসেছে। গত কাল আক্রান্ত হয়েছে মাত্র ১৩ জন, মারা গেছে ১১।

করোনার প্রধান কেন্দ্র হয়ে দাঁড়িয়েছে এখন ইউরোপ। ইতালি, ফ্রান্স ও স্পেন-তিন দেশে সব মিলিয়ে মারা গেছে ৩ হাজারের অধিক, যার মধ্যে ইতালিতেই মৃত দুই হাজার ৫০৩ জন। দেশগুলোতে আক্রান্ত ৫০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে।

Comments

comments