অবশেষে ভারতের ধর্ষণ ও হত্যাকারী সেই চারজনের ফাঁসি কার্যকর

ভারতের রাজধানী দিল্লিতে ২০১২ সালে চলন্ত বাসে একটি মেয়েকে ধর্ষণ এবং হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় দোষী সাব্যস্ত চার ধর্ষক ও হত্যাকারীর ফাঁসি কার্যকর করা হয়েছে।

অক্ষয় ঠাকুর, বিনয় শর্মা, পবন গুপ্ত এবং মুকেশ সিং নামের চারজনকে ২০১৩ সালে একটি আদালত ফাঁসির আদেশ দেয়।

দিল্লির তিহার কারাগারে এই চারজনের ফাঁসি কার্যকর করা হয়। ২০১৫ সালের পর থেকে ভারতে এটি হচ্ছে একমাত্র ফাঁসি কার্যকরের ঘটনা।

এই ঘটনায় নিহত তরুণী ভারতে ‘নির্ভয়া’ নামে পরিচিতি পেয়েছিল – আর চাঞ্চল্যকর সেই মামলার পর ভারতে বদলে গিয়েছিল ধর্ষণের সংজ্ঞা ও শাস্তিও।

এর আগে নির্ভয়ার পরিবার যত দ্রুত সম্ভব দোষীদের ফাঁসি কার্যকর করতে পাতিয়ালা হাউস কোর্টে আর্জি জানিয়েছিলো।

২০১২ সালের ১৬ই ডিসেম্বর রাতে দিল্লিতে চলন্ত বাসে ২৩ বছরের তরুণী নির্ভয়াকে গণধর্ষণ করেছিল ওই চার জন। গণধর্ষণের পর শারীরিক নিপীড়ন চালিয়ে নগ্ন অবস্থায় চলন্ত বাস থেকে ছুঁড়ে ফেলে দেওয়া হয়েছিল নির্ভয়াকে।

নির্ভয়া এবং তার পুরুষ বন্ধুর উপর নৃশংস অত্যাচার চালায় তারা। সেই মামলায় আগেই ওই চার জনকে ফাঁসির সাজা শুনিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট।

২০১৩ সালের সেপ্টেম্বরে ২৩ বছর বয়সী নির্ভয়াকে গণধর্ষণ করে হত্যার দায়ে ছয় আসামির মধ্যে চারজনের ফাঁসির আদেশ দেয় দিল্লির ফাস্ট ট্র্যাক কোর্ট। ২০১৪ সালে দিল্লি হাইকোর্ট চারজনের ফাঁসির আদেশ বহাল রাখে।

২০১৭ সালে সেই রায় পুনর্বিবেচনা করে দেখতে আদালতে আর্জি জানিয়েছিল অন্যতম অভিযুক্ত অক্ষয় ঠাকুর সিং। গত মাসেই অবশ্য তার সেই আবেদন খারিজ হয়ে গিয়েছে।

Comments

comments