খুলনায় পুলিশ সদস্য ও বাবা করোনা ইউনিটে ভর্তি

জ্বর, সর্দি-কাশি ও গলাব্যথা নিয়ে খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে এক পুলিশ সদস্য ও তার বাবা ভর্তি হয়েছেন।

মঙ্গলবার রাতে তাদের ভর্তি করা হয়। ওই পুলিশ সদস্য খুলনা মেট্রোপলিটন (কেএমপি) পুলিশ লাইন্সের কনস্টেবল। তার সেবায় নিয়োজিত থাকায় বাবাকেও হাসপাতালে ভর্তি রাখা হয়েছে। তারা মাগুরার সদর উপজেলার বাসিন্দা।

খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. এ টি এম মঞ্জুর মোর্শেদ বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, মঙ্গলবার রাতে ওই পুলিশ সদস্যকে তার বাবা করোনাভাইরাস আক্রান্ত সন্দেহে হাসপাতালে নিয়ে আসেন। পুলিশ সদস্যের জ্বর, মাথাব্যথা, সর্দি-কাশি ও গলাব্যথা রয়েছে। প্রাথমিক পরীক্ষার পর তাকে করোনা ইউনিটে ভর্তি করা হয়। তিনি এই হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ভর্তি প্রথম রোগী।

মঞ্জুর মোর্শেদ জানান, ছেলেকে এ অবস্থায় মাগুরা থেকে নিয়ে আসেন তার বাবা। ছেলেকে সেবা দেওয়ার সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকার কারণে তাকেও করোনা ইউনিটে রাখা হয়েছে। তবে চিকিৎসকরা এখনো নিশ্চিত নন, তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত কিনা।

তিনি বলেন, তারা জাতীয় রোগতত্ত¡, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) সঙ্গে যোগাযোগ করছেন। বৃহস্পতিবার স্যাম্পল সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হবে।

খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের সিটি স্পেশাল ব্রাঞ্চের বিশেষ পুলিশ সুপার রাশিদা বেগম জানান, ওই পুলিশ সদস্য গত ৩ মার্চ থেকে পক্সে আক্রান্ত হয়ে গ্রামের বাড়িতে ছুটিতে ছিলেন। মঙ্গলবার কাজে যোগ দিতে আসলে তার শারীরিক সমস্যার কারণে হাসপাতালে পাঠানো হয়। সঙ্গে তার বাবাওকে সতর্কতামূলকভাবে রাখা হয়েছে।

Comments

comments