করোনা নিয়ে মন্ত্রী ও অধিদফতরের ভিন্ন তথ্য, জনমনে হাস্যরস

দেশে করোনাভাইরাসে নতুন মৃত্যু ও আক্রান্তের সংখ্যা নিয়ে দুইরকম তথ্য দিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও স্বাস্থ্য অধিদফতর। এনিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম জুড়ে চলছে ‍সমালোচনা।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক আজ সোমবার মহাখালীর বিসিপিএস মিলনায়তনে সরকারি ও বেসরকারি স্বাস্থ্যকর্মকর্তা ও প্রতিনিধিদের সভায় জানিয়েছেন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে নতুন মারা গেছেন চারজন। কিন্তু বেলা ২টায় স্বাস্থ্য অধিদফতরের অনলাইন প্রেসব্রিফিংয়ে আইইডিসিআরের পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা জানিয়েছেন এ সংখ্যা তিনজন। এছাড়া স্বাস্থ্যমন্ত্রী গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তের সংখ্যা জানিয়েছিলেন ২৯ জন কিন্তু স্বাস্থ্য অধিদফতরের ব্রিফিংয়ে বলা হলো এ সংখ্যা ৩৫।

স্বাস্থ্যমন্ত্রীর তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশে এ পর্যন্ত মারা গেছে ১৩ জন এবং মোট আক্রান্ত হয়েছে ১১৭ জন। স্বাস্থ্য অধিদফতরের তথ্য অনুযায়ী করোনায় মোট মারা গেছে ১২ জন এবং মোট আক্রান্ত হয়েছে ১২৩ জন। এর মধ্যে ঢাকা জেলার ৬৪ জন।

এদিকে গণমাধ্যমে এই তথ্য প্রচারের পর থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে তুমুল সমালোচনা। অনেকেই হস্যরস করে বলছেন, মৃত ব্যক্তি ১ ঘন্টায় জীবিত হয়ে যাওয়ার বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করলো বাংলাদেশ।

আবার অনেকেই প্রশ্ন ‍তুলে লিখেছেন, আসল নাটের গুরু কে সেব্রিনা নাকি স্বাস্থ্যমন্ত্রী? তারা বলছেন, বাংলাদেশেই সম্ভব ১ ঘন্টায় মৃত মানুষকে জীবিত করে তোলা। সত্য কোনদিন চাপা থাকেনা। একদিন বেরিয়ে আসবে।

আইইডিসিআরের তথ্যমতে গত ৮ মার্চ প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। এরপর এটাই প্রথম সর্বোচ্চ রোগী শনাক্ত করা হলো। শুরু থেকে করোনার তথ্য গোপনের অভিযোগ রয়েছে ক্ষমতাসীন দলের বিরুদ্ধে। এর আগেও তথ্য প্রকাশের সময় গরমিল দেখা গেছে।

Comments

comments