করোনা নিয়েও ‘মিথ্যা বলছেন’ ট্রাম্প

অসত্য আর এলোমেলো তথ্যের সমাহার সাজাতে বিশ্ব নেতাদের মধ্যে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জুড়ি মেলা ভার। তার এই সহজাত অভ্যাস নভেল করোনাভাইরাসের সময়েও থেমে নেই। সিএনএন জানিয়েছে, শনিবারের সংবাদ সম্মেলনে একাধিক মিথ্যা বলতে শোনা গেছে তাকে।

ট্রাম্পের বলা ‘মিথ্যা’ নিয়ে ‘ফ্যাক্ট চেকস’ সংবাদ প্রকাশ করেছে মার্কিন গণমাধ্যমটি। সেখানে বলা হয়েছে, আমেরিকার করোনা টেস্ট নিয়ে ট্রাম্প যেমন ভুয়া তথ্য দিয়েছেন, তেমনি একাধিক অপ্রাসঙ্গিক বিষয়ে আলোচনা করেছেন। করোনা বিষয়ক ব্রিফিংয়ে এসে তিনি উত্তর কোরিয়া, ইরান প্রসঙ্গ টেনেছেন।

শনিবার সন্ধ্যায় ট্রাম্পকে বলতে শোনা যায়, ‘আমার আমলেই ত্রুটিপূর্ণ পরীক্ষা শনাক্তের পদ্ধতি তৈরি হয়েছে।’ যথেষ্ট পরীক্ষা পদ্ধতি না রাখায় এ সময় তিনি আগের সরকারকেও দোষারোপ করেন।

কিন্তু সিএনএন বলছে, টেস্টের উন্নতি বিষয়ে ট্রাম্প প্রশাসনের কোনো কৃতিত্ব নেই। এটি আগে থেকেই ছিল।

ট্রাম্প তার বক্তব্যে বলেন, ‘বিশ্ব নেতাদের সঙ্গে সকালে আলাপ হয়েছে। তারা বলল আমরা যেভাবে সমস্যা মোকাবিলা করছি, সেটি অবিশ্বাস্য।’

কোনো দেশের নেতার নাম উল্লেখ না ট্রাম্প বলেন,‘কোনো দেশই বুঝতে পারেনি করোনা এত বড় সমস্যা সৃষ্টি করবে।’ অর্থাৎ ট্রাম্প দাবি করতে চাইছেন, নভেল করোনাভাইরাস যে বৈশ্বিক মহামারী আকার ধারণ করবে, সেটি আগে থেকে কেউ বোঝেনি।

কিন্তু আসল ব্যাপার হল ট্রাম্প প্রশাসনকে গোয়েন্দা সংস্থা থেকে সেই নভেম্বরে নতুন এই ভাইরাসটির বিষয়ে সতর্ক করা হয়। দেশটির একাধিক স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডিসেম্বর থেকে এ বিষয়ে সতর্ক হওয়ার তাগিদ দেন। কিন্তু ট্রাম্পের কানে তখন জল যায়নি!

সিএনএনের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আমেরিকার সার্বিক পরিস্থিতি নিয়েও ট্রাম্প মিথ্যাচার করছেন। প্রেসিডেন্টের দাবি, তার দেশে করোনা ‘মোটামুটি নিয়ন্ত্রণে’ আছে! অথচ করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যায় শীর্ষে যুক্তরাষ্ট্র।

জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, স্থানীয় সময় শনিবার রাত পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন মৃতের সংখ্যা ১ হাজার ৮৯১ জন।

শুক্রবার দেশটিতে মৃত্যু হয়েছিল ৩ হাজার ৮৫৬ জনের। এর আগের ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছিল ৪ হাজার ৪৯১ জনের।

Comments

comments