ঋণের বোঝা বইতে না পেরে স্বামী-স্ত্রীর আত্মহত্যা

যশোরের কেশবপুর উপজেলার ঘোপসানা গ্রামে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে এক দম্পতি। শুক্রবার (২৪ এপ্রিল) বেলা ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে। পুলিশের ধারণা ঋণের কারণে হতাশাগ্রস্ত হয়ে আত্মহত্যা করেছেন তারা।

নিহতরা হলেন- কেশবপুর উপজেলার সাগরদাঁড়ি ইউনিয়নের ঘোপসেনা গ্রামের শামিম হোসেন (৩০) ও তার স্ত্রী রেনুকা বেগম (২৫)।

নিহতদের স্বজনরা জানিয়েছেন, সংসারে দেনা হওয়ার কারণে শামিম মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন। সে কারণে আজ সকালে শামিম গামছা দিয়ে আর রেনুকা তার ওড়না দিয়ে ফাঁস লাগিয়ে ঘরের আড়ায় ঝুলে আত্মহত্যা করেন।

সাগরদাঁড়ি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুল ইসলাম জানান, অভাবের তাড়নায় আত্মহত্যা করেনি। তবে তার দায়দেনার পরিমাণ অনেক। শামিম পল্লী বিদ্যুতের ফোরম্যান হিসেবে কাজ করতেন। লেবার আনার ক্ষেত্রে তিনি এ দায়দেনায় জড়িয়ে পড়েন। সকালে তার ৫ বছরের শিশু ছেলেটি পাশেই নানাবাড়িতে চলে যায়। সকালে ওই বাড়িতে রান্নাও হয়েছে। কিন্তু তারা খাওয়া-দাওয়া করেনি। ধারণা করা হচ্ছে, দায়দেনার কারণে স্বামী-স্ত্রী একসাথে আত্মহত্যা করেছেন।

কেশবপুর থানার ওসি জসীম উদ্দীন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঋণ ও দায়দেনার কারণে হতাশাগ্রস্ত হয়ে তারা আত্মহত্যা করেছেন বলে আমরা প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায় এবং ময়নাতদন্তের জন্য লাশ যশোর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।

Comments

comments