খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির ট্রাকভর্তি চাল গোপনে বিক্রির চেষ্টা, স্থানীয়দের হস্তক্ষেপ

সিলেটের জকিড়গঞ্জে ‘খাদ্য বান্ধব কর্মসূচি’র চালভর্তি ট্রাক নিয়ে ডিলারের কাছে বিক্রি করতে নিয়ে গেলে স্থানীয়রা তাতে হস্তক্ষেপ করে। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে লাঠিচার্জ চালিয়ে ৩৪৬ বস্তা চাল উদ্ধার করতে পেরেছে। এ ঘটনায় ৬ জনকে আটক করা হয়েছে। ১০ টাকা কেজি দরে ওই চাল বিক্রির জন্য ৩ জন ডিলারের কাছে নিয়ে যাওয়া হয়েছিলো। পরে ডিলাররা স্থানীয় কালিগঞ্জ বাজারের একটি দোকানে চাল গুদামজাত করতে গেলে এ স্থানীয়রা হস্তক্ষেপ করে। এ সময় ট্রাকের চালক ও হেল্পার পালিয়ে যায়।

স্থানীয় সূত্র জানিয়েছে- রোববার সকাল ১০ টার দিকে স্থানীয় কালিগঞ্জ বাজারে চালভর্তি একটি ট্রাক পাওয়া যায়। ওই ট্রাকে রাখা চালের বস্তার গায়ে খাদ্য অধিদপ্তরের সিল দেওয়া।

ফলে ওই চাল নিয়ে স্থানীয়দের মধ্যে সন্দেহ হলে তারা ট্রাকের চালক ও হেল্পারকে এ ব্যাপারে প্রশ্ন করলে কোনো উত্তর পাননি। এতে সন্দেহ হলে ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেন স্থানীয়রা। তার ক্ষোভ প্রকাশ করলে ট্রাকের চালক ও হেল্পার পালিয়ে যায়। এই সুযোগে স্থানীয় লোকজন ওই টুকের লুটপাট চালায়। বাজারের উপস্থিত থাকা লোকজন এসে একেক বস্তা করে নিয়ে যান। খবর পেয়ে সেখানে আসে পুলিশ। এসে লাঠিচার্জ চালিয়ে লুটপাট বন্ধ করে।

এদিকে- খবর পেয়ে সেখানে যান জকিগঞ্জ থানার ইউএনও বিজন কুমার সিংহ ও ওসি মীর মোহাম্মদ আব্দুল নাসের। তারা গিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করেন। এ সময় তারা স্থানীয় কসকনকপুর ইউনিয়নের ডিলার আব্দুল মুকিত, বারঠাকুরীর ডিলার আব্দুল আজিজ ও মানিকপুরের খলিলুর রহমান সহ ৬ জনকে আটক করে নিয়ে আসেন। এ সময় ৩৪৬ বস্তা চাল উদ্ধার করা হয় বলে জানান জকিগঞ্জ থানার ওসি তদন্ত সুশঙ্কর পাল। তিনি জানান- এখন সব কিছু যাচাই বাচাই করা হচ্ছে। এরপর মামলা গ্রহনের সিদ্বান্ত গ্রহন করা হবে। জকিগঞ্জ থানার ওসি মীর আব্দুল নাসের কালিগঞ্জ বাজারে স্থানীয় উত্তেজিত জনতাকে উদ্দেশে জানিয়েছেন- সরকারী চাল পাচার কিংবা অবৈধ গুদামজাতের প্রমান পাওয়া গেলে দোষিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। তার এই কথায় জনতা শান্ত হয়ে ফিরে যায়।

ডিলাররা জানিয়েছেন- ট্রাকে ৫৭০ বস্তা চাল জকিগঞ্জের কসকনকপুর, বারঠাকুরী ও মানিকপুর ইউনিয়নে বিক্রির জন্য নেওয়া হচ্ছিলো। সিলেট থেকে বস্তাভর্তি ওই ট্রাক কালিগঞ্জ বাজারে পৌছে কসকনকপুরের ডিলার মুকিতের দোকানে মালামাল নামানোর সময় জনতা উত্তেজিত হয়ে হামলা চালায়। এ সময় চালক ও হেল্পার পালিয়ে যাওয়ার পর ট্রাক থেকে চালের বস্তা লুটপাট করা হয়।

স্থানীয়রা অভিযোগ করেন- চাল নির্ধারিত দোকানে গুদামজাত না করে অন্য দোকানে নামানোর কারনেই সন্দেহ হয়। তারা এজন্য ডিলারদের দায়ী করেন। এ ব্যাপারে জকিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিজন কুমার সিংহ জানিয়েছেন- ডিলার সহ যারা ঘটনায় জড়িত সবার বিরুদ্ধে মামলা হবে। চাল লুটপাট করাও অপরাধ। সুতরাং মামলা দায়েরের পর পুলিশ এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেবে।

Comments

comments