মাদারীপুরে আ.লীগের দুই গ্রুপের তুমুল সংঘর্ষ, গুলিবিদ্ধ ৫

সদর উপজেলার পূর্ব রাস্তি এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছেন। এসময় প্রতিপক্ষের গুলিতে ৫ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন বলে জানা গেছে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ওই এলাকায় দীর্ঘদিন ধরেই জেলা যুবলীগের সহ-সম্পাদক বিল্লাল মোল্লার সাথে একই এলাকার উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রাজু হাওলাদারের দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। এর জের ধরেই রোববার দুপুরে দুই পক্ষের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে উভয়পক্ষের ১০ জন আহত হয়। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বিগত রাস্তি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে রাজু হাওলাদার ও বেল্লাল মোল্লা চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে। নির্বাচনে অবশ্য দুজনের কেউ বিজয়ী হতে পারেননি। এরপর থেকেই দুজনের মধ্যে এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে মাঝে মধ্যে চরম উত্তেজনা দেখা দিত।

এ আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করেই দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় ৫ জন গুলিবিদ্ধসহ ১০ জন আহত হয়। গুলিবিদ্ধরা হলেন, পূর্বরাস্তি এলাকার সালাম সরদারের ছেলে রাজ্জাক সরদার (৩২), মজিবর সরদারের ছেলে মামুন সরদার (৩৫), ঘেসু বেপারীর ছেলে পলাশ বেপারী (৩৫), মজিবর সরদারের ছেলে সাদ্দাম সরদার (৩২), ফিরোজ সাহী (৪২) ছাড়াও আরও ৫ জন আহত হয়েছেন। গুলিবিদ্ধ ৫ জন সদর হাসপাতালে ভর্তি আছে। এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এখন পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

মাদারীপুর সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগে কর্তব্যরত ডাক্তার মফিজুল ইসলাম লেলিন বলেন, সংঘর্ষের ঘটনায় গুলিবিদ্ধ ৫ জন সদর হাসপাতালে ভর্তি আছে।

এদের মধ্যে পলাশ বেপারী, মামুন সরদার, সাদ্দাম, বাবু ফকিরসহ ৫ জন মাদারীপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। অন্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

মাদারীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বদরুল আলম মোল্লা বলেন, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে এ সংঘর্ষ হয়েছে।পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছে। আমরা প্রাথমিকভাবে জানতে পেরেছি বিল্লাল মোল্লার লাইসেন্স করা বন্দুক থেকেই গুলি করা হয়েছে।

Comments

comments