লকডাউন শিথিল করতেই ভারতে করোনা পরিস্থিতির অবনতি

ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে লকডাউন কিছুটা শিথিল করতেই করোনাভাইরাস পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে। ২৪ ঘন্টায় দেশটিতে মারা গেছে ১শ’ ৯৫ জন। আক্রান্ত হয়েছে ৩ হাজার ৯শ’ জন। দু’দিক থেকেই এটি ভারতের একদিনে সর্বোচ্চ রেকর্ড।

ভারতে গত কয়েকদিনে লাফিয়ে বেড়েছে করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা। সোমবার করোনার সবচেয়ে বড় হটস্পট বলে পরিচিত মহারাষ্ট্রেই শনাক্ত হয় দেড় হাজারের বেশি করোনা আক্রান্ত রোগী। তামিলনাড়ুতে আক্রান্ত ৫শ’র বেশি। পশ্চিমবঙ্গে প্রায় দ্বিগুন হয়েছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। গুজরাটেও খুব দ্রুত বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা।

টেস্ট বাড়ছে। করোনা পজিটিভের সংখ্যাও বাড়ছে। মঙ্গলবার দেশটির স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, সোমবার ৮০ হাজারেরও বেশি মানুষের করোনা পরীক্ষা করা হয়। এ দিন দেশটিতে সর্বোচ্চ আক্রান্ত হয় তিন হাজার ৯শ’ জন। মারা গেছে ১শ’ ৯৫ জন৷ সবমিলিয়ে দেশটিতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪৬ হাজার ৭শ’ ১১ জন ৷ মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে প্রায় ১৬শ। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৩ হাজার ১শ’ ৬১ জন৷

করোনাভাইরাস রুখতে ভারতে তৃতীয় দফায় চলছে লকডাউন। তবে, দিল্লিসহ অনেক শহরেই রেড, অরেঞ্জ এবং গ্রিন, এই তিনটি জোনেই কিছু না কিছু ছাড় মিলেছে। ফলে লকডাউন থাকার পরেও, সংক্রমণ দ্রুত ছড়াচ্ছে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনা মোকাবিলায় লকডাউনের প্রভাবে ভারত যে সুফল পাচ্ছিল, তা অনেকাংশেই হারিয়ে ফেলছে দ্রুত লকডাউন শিথিল করায়। বৃহস্পতিবার থেকে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আটকে পড়া এক লাখ ৯০ হাজার ভারতীয়কে দেশে ফিরিয়ে আনছে মোদী সরকার।

লকডাউন শিথিল করায় মদের দোকানে উপচেপড়া ভিড় বিভিন্ন রাজ্যে। ভিড় সামাল দিতে হিমশিম খেতে হচ্ছে পুলিশকে। কয়েক এলাকায় লাঠি চার্জও হয় পাহাড়গঞ্জে। পরিস্থিতি সামলাতে মদের ওপর ৭০ শতাংশ কর আরোপ করা হয়েছে।

Comments

comments