শেষ হচ্ছে রোনালদিনহোর ‘বন্দিজীবন’

প্যারাগুয়েতে ভুয়া পাসপোর্ট নিয়ে প্রবেশের দায়ে গ্রেপ্তার হওয়া ব্রাজিলিয়ান ফুটবল কিংবদন্তি রোনালদিনহোর ৭০ দিনের বন্দিজীবন শেষ হতে যাচ্ছে। তার আইনজীবী জানিয়েছেন, দুই মাসের বেশি আটক থাকার পর দেশে ফেরার অনুমতি পেতে যাচ্ছেন সাবেক বিশ্বসেরা এই ফুটবলার।

এ ব্যাপারে একটি সূত্র এএফপিকে বলেছেন, “রোনালদিনহো ও তার ভাই যাতে দেশে ফেরার অনুমতি পায় সে জন্য আমরা আদালতকে বোঝাতে পারব বলে আমরা আশা করছি। তদন্ত প্রক্রিয়া শেষ করার অপেক্ষা ছাড়া আমাদের আর কিছু করার নেই।”

বলে জানা গেছে, তদন্তে দোষী প্রমাণিত হলে বার্সেলোনা, এসি মিলান ও পিএসজি’র সাবেক তারকা রোনালদিহো ও তার ভাই রবের্ত ডি আসিস মরেইরাকে পাঁচ বছরের জেল হতে পারে।

ভুয়া পাসপোর্ট বহনের দায়ে ৭ মার্চ প্যারাগুয়ের আসুসিওনে পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হন দুই ভাই। এ কাজে সম্পৃক্ত আরও ১৮ জনকে গ্রেপ্তারের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক। জানিয়েছেন, এই মামলার তদন্ত শেষ হতে ছয় মাসের মতো সময় লাগতে পারে।

শুরুতে এক মাস জেলে থাকার পর আদালতে বেশ কয়েকবার আপিল করে গৃহবন্দী থাকার অনুমতি পান তারা। এ জন্য ১৬ লাখ মার্কিন ডলার মুচলেকা দিতে হয় ২০০২ সালে ব্রাজিলের বিশ্বকাপ জয়ী দলের এই তারকা রোনালদিহোকে।

আরাম-আয়েশের মধ্যে গৃহবন্দী থাকলেও ২০০৫ সালে ব্যালন ডি’অর জয়ী ফুটবলারকে এভাবে আটকে রাখাটা ‘অন্যায্য’ বলে উল্লেখ করেছেন প্যারাগুয়ের ফুটবলার ইউনিয়নের সভাপতি রগেলিও দেলগাদো।

“তাকে অভিযুক্ত করার মতো একটা প্রমাণও নাই। যদিও আরামের জেল। এরপরও তাকে এখন পর্যন্ত বন্দী রাখাটা অন্যায্য।”

Comments

comments