পাপলুদের অপকর্মের দায় সরকার এড়াতে পারে না: রিজভী

বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, বিগত ১২ বছরে এদেশে ‘ক্যাসিনো ক্যাপিটালিজম’ এর জন্ম দিয়েছে সরকার। কুয়েতে লক্ষ্মীপুরের এমপি পাপলুর গ্রেপ্তার তারই বহিঃপ্রকাশ।

পাপলুদের অপকর্মের দায় সরকার এড়াতে পারে না বলেও বুধবার দুপুরে এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে তিনি মন্তব্য করেন।

রিজভী বলেন, ‘মানবপাচার ও হাজার হাজার কোটি টাকা দুর্নীতির অভিযোগে কুয়েতে লক্ষ্মীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য কাজী শহীদ ইসলাম পাপুলকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সম্প্রতি এ বিষয়ে গণমাধ্যমে রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে যা বাংলাদেশের জন্য চরম লজ্জার হলেও সরকারের টনক নড়েনি।’

তিনি বলেন, বর্তমান সরকার ২০০৯ সালে ক্ষমতায় আসার পর বাংলাদেশ থেকে টাকা পাচারের হিড়িক পড়ে। বর্তমানে এমপি হতে ভোটের প্রয়োজন হয় না। নির্বাচনের আগের রাতেই নির্বাচনে দায়িত্বরত কর্মকর্তা ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা রাতের ভোটে এমপি বানিয়ে দেন। লক্ষ্মীপুরের সেই এমপি তারই একটি উদাহরণ।

বিএনপি মুখপাত্র বলেন, বিগত ১২ বছরে সুইস ব্যাংকসহ মালয়েশিয়া, কানাডায় লাখ লাখ কোটি টাকা পাচার করেছে ক্ষমতা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা। ব্যাংক লুট, শেয়ারবাজার লুট, মেগা প্রকল্পের নামে হাজার হাজার কোটি টাকার মহাদুর্নীতি, দখল ও নিয়োগ বাণিজ্যের মাধ্যমে দেশজুড়ে যে লুটের মহোৎসব চলছে কুয়েতে এমপি গ্রেপ্তার তারই একটি নমুনা মাত্র।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ রাজনৈতিক অঙ্গনে অনেকটাই অপরিচিত পাপলু একাই এমপি হননি, তার স্ত্রীকেও এমপি বানিয়েছেন। দুর্বৃত্তায়নের মাধ্যমে প্রকৃত রাজনীতিক ও রাজনীতিকে ধ্বংস করা হয়েছে।

রিজভী বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতাসীন হওয়ার পর থেকেই জনগণের ক্ষমতার উৎসকে দেশের রাজনীতির অঙ্গন থেকে বিদায় করে পাপলুদের পরিচর্যা করা হয়েছে নিরন্তরভাবে। পাপলুদের অপকর্মের দায় সরকার এড়াতে পারে না।

তিনি বলেন, বিশ্বে প্রচলিত অর্থনীতির ধারণার সঙ্গে বাংলাদেশের ফটকাবাজি অর্থনীতির মিল নেই। কারণ বিগত ১২ বছরে এদেশে ‘ক্যাসিনো ক্যাপিটালিজম’ এর জন্ম দেওয়া হয়েছে।

এ সময় বিএনপি মুখপাত্র বলেন, করোনায় সংক্রমণ ও মৃত্যু থামছেই না। সরকারের ব্যর্থতায় প্রতিদিনই পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃত্যুর মিছিল। সরকারি প্রেস নোটে প্রতিদিন যে খবর প্রকাশিত হচ্ছে, বাস্তবতার সঙ্গে তার কোনো মিল নেই।

একটি অক্সিজেন সিলিন্ডার, একটি ভেন্টিলেটরের জন্য মানুষ হাহাকার করছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, ক্ষমতা-অন্ধ ওবায়দুল কাদের সাহেবরা নির্জন কক্ষ থেকে প্রায় প্রতিদিনই ভার্চুয়াল সংবাদ ব্রিফিং করে বিরোধী দলের মুখ বন্ধ করার চেষ্টা করছেন, অবান্তর কথা বলে।

Comments

comments